বিসিসিআই-র নতুন সভাপতি পদে বসতে চলেছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

নমিনেশন ফাইলে স্বাক্ষর করার মুহূর্তে সৌরভ গাঙ্গুলি

আনন্দ সংবাদ:সর্বসম্মতিক্রমে বিসিসিআই-র নতুন সভাপতি পদে বসতে চলেছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। রবিবার রাতে মুম্বই-তে বিসিসিআই -র বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর। ক্রিকেট প্রশাসক হিসেবে অভিজ্ঞতা, জনপ্রিয়তা ও কার্যকারিতার বিচারেই মহারাজ বিসিসিআই-র সভাপতি হওয়ার দৌড়ে সব প্রতিদ্বন্দ্বীকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন বলে খবর।
সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত বিসিসিআই-র কমিটি এফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর ঠিক করে যে ২৩ অক্টোবর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পদাধিকারীদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিনই বিসিসিআই-র সাধারণ সভা হওয়ার কথা। তবে ভোট যে হচ্ছে না, তা নিশ্চিত। কারণ দীর্ঘ এক সপ্তাহের আলোচনা, পর্যালোচনা, ‘লবিং’র পর বিসিসিআই-র সভাপতি, সম্পাদক সহ অন্যান্য পদে প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বী বলেই জানানো হয়েছে। তাই নির্ধারিত দিনে সাধারণ সভার মাধ্যমেই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের মাথাদের নাম ঘোষণা করে হবে বলে সূত্রের খবর।
লড়াই ছিল প্রধানত দুই শিবিরের। একদিকে বিসিসিআই-র প্রাক্তন সভাপতি এন শ্রীনিবাসন অ্যান্ড কং ওই পদে নিজেদের পছন্দের প্রার্থীর নাম প্রস্তাব করে। উল্টোদিকে বিসিসিআই-র আরেক প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট অনুরাগ ঠাকুর শিবির ওই পদে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নাম রাখে। প্রতিবারের মতো এবারও বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে কেন্দ্র। দুই শিবিরের সদস্যরাই এ ব্যাপারে এক কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করে বলে জানা গিয়েছে। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় নিজেও নাকি ওই মন্ত্রীর সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক করেন বলে খবর। দীর্ঘদিন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক থাকার পাশাপাশি বেঙ্গল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন বা সিএবি-র সভাপতি পদে অভিজ্ঞতা মহারাজকেই এই পদের যোগ্য বলে মনে করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। ওই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কথাতে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কেই বিসিসিআই-র সভাপতি পদে নাকি মেনে নিয়েছে বিরোধী শিবিরও।বিসিসিআই-র সভপতি নির্বাচিত হলেও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কার্যকাল ১০ মাসের বেশি হবে না বলেই জানানো হয়েছে। কারণ সুপ্রিম কোর্টের লোধা প্যানেলের নিয়ম অনুযায়ী কোন ব্যক্তি পাঁচ বছরের বেশি একটানা দেশের কোনও ক্রিকেট প্রশাসক পদে আসীন থাকতে পারবেন না। ২০২০-র সেপ্টেম্বরে দেশের ক্রিকেট প্রশাসক হিসেবে পাঁচ বছর পূর্ণ হবে মহারাজের। এরপর তাঁকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিতেই হবে।।বিসিসিআই-র সভপতি নির্বাচিত হলেও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কার্যকাল ১০ মাসের বেশি হবে না বলেই জানানো হয়েছে। কারণ সুপ্রিম কোর্টের লোধা প্যানেলের নিয়ম অনুযায়ী কোন ব্যক্তি পাঁচ বছরের বেশি একটানা দেশের কোনও ক্রিকেট প্রশাসক পদে আসীন থাকতে পারবেন না। ২০২০-র সেপ্টেম্বরে দেশের ক্রিকেট প্রশাসক হিসেবে পাঁচ বছর পূর্ণ হবে মহারাজের। এরপর তাঁকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিতেই হবে।

Please follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *