বাংলা ছবিতে আবার আশার আলো নিয়ে এল ‘কণ্ঠ’

ছবির নাম:কন্ঠ
পরিচালক:নন্দিতা রায়,শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়
অভিনয়:শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, পাওলি দাম,জয়া এহসান, কানিনীকা বন্দ্যোপাধ্যায়, পরান বন্দ্যোপাধ্যায়, চিত্রা সেন।
সঙ্গীত:অনুপম রায়
প্রযোজনা:উইনডোজ
রেটিং:৯/১০

কে বলে বাংলা ছবি চলছে না?ভালো কনটেন্ট হলে নিশ্চয়ই চলবে,সেটা বার বারই প্রমান করেছেন নন্দিতা-শিবপ্রসাদ জুটি।ভালো বাংলা ছবি উপহার দেওয়ার জন্য যে বিদেশের মাটিতে শুটিং করতে যাওয়ার দরকার নেই,তথাকথিত কোনও স্টার রাখারও দরকার নেই,তা তাঁরা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন।সেটা তাঁরা ইচ্ছে থেকে শুরু করে ‘মুক্তধারা’,’রামধনু’,’পোস্ত’,’হামি’-তে দেখিয়ে দিয়েছেন।তাঁদের সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ছবি ‘কন্ঠ‘।তাঁদের সব ছবির কাহিনিতেই থাকে অভিনবত্ব, তবে ‘কন্ঠ‘ সবকিছুর উর্দ্ধে চলে গেছে। ল্যারিঞ্জেকটোমি রোগকে নিয়ে ছবি,এবং এই ধরনের রোগীদের যে মূল স্রোতে ফেরানো সম্ভব তা এই ছবি দেখে এই ধরনের রোগীরা অনুপ্রেরণাও পাবে।এরকম একটা বিষয় ভাবনাকে ছবিতে তুলে ধরার জন্য পরিচালকদ্বয়কে প্রশংসা করতেই হবে।

ছবির কাহিনি এক রেডিও জকি অর্জুন মল্লিক(শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়)কে নিয়ে, যে বেশ জনপ্রিয়ও।সে হঠাৎ জানতে পারে যে তাঁর গলায় ক্যানসার এবং ডাক্তার উপদেশ দেয় অবিলম্বে তাঁর ভয়েস বক্সটি বাদ না দিলে রোগটি দ্রুত সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়বে।অর্জুনের স্ত্রী পৃথা(পাওলি দাম)-একটি টিভি চ্যানেলের খবর পাঠিকা,বাচিক শিল্পী,আছে ছোট বাচ্চা টুকাই।অর্জুন শেষ পর্যন্ত পরিবারের কথা ভেবে অপারেশনের জন্য রাজি হয়।তারপর কি হয় তা নিয়েই কাহানি এগোয়।কি করবে একজন রেডিও জকি?যাঁর কণ্ঠই ছিল তাঁর সম্পদ।পৃথার কাছে কি অর্জুন বোঝা হয়ে যাবে?নাকি তাঁর পাসে থেকে লড়ে যাবে?স্পিচ থেরাপিস্ট রোমিলা চৌধুরী(জয়া এহসান) পারবে কি অর্জুনের কন্ঠকে ফিরিয়ে দিতে?এসব প্রশ্নের উত্তর পেতে হলে ছবিটা দেখতেই হবে।তবে ছবি দেখে বেরোনোর সময় আপনার চোখ দুটো অশ্রুপূর্ণ হবেই।সাম্প্রতিক কালে এরকম বাংলা ছবি দর্শক দেখেননি হলফ করে তা বলা যায়।আর অভিনয়?অর্জুন মল্লিকের চরিত্রে শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের অভিনয় এতটাই স্বাভাবিক যে যত প্রশংসা করা যাক না কেন সেটা কম হয়ে যাবে।অর্জুনের স্ত্রী পৃথার চরিত্রে পাওলি দাম যেন পৃথাই হয়ে উঠেছেন।তবে কোথাও যেন একটু হলেও তাঁকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন জয়া এহসান। বাঙাল চরিত্র হিসাবে তাঁর স্বাভাবিকত্ব তো ছিলই,সঙ্গে তাঁর অভিব্যক্তি,তাঁর অভিনয় দর্শককুলকে মুগ্ধ করেছে।অর্জুনের পিসির চরিত্রে চিত্রা সেন কমিক রিলিফ হিসেবে কাজ করেছেন।ভালো লাগে কানিনীকা বন্দ্যোপাধ্যায়,পরান বন্দ্যোপাধ্যায়,তানিমা সেন,মৌমিতা পন্ডিতদের স্বাভাবিক অভিনয়।অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়প্রশ্মিতা পালেরবর্ণপরিচয়‘ গানটি ছবিতে শুনতে বেশ ভালো লাগে।সবাই যখন বলছে বাংলা ছবির অবস্থা খারাপ,বাংলা ছবি চলছে না,তখন ‘কণ্ঠ‘ তাদের কাছে প্রতিবাদী কণ্ঠ হয়ে এল।এখন পর্যন্ত রোজ প্রায় সব হল-ই ‘কন্ঠ‘ হাউসফুল হচ্ছে বলে খবর।

রিভিউ:রামিজ আলি আহমেদ

Please follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *