প্রত্যাশা পূরনে ব্যার্থ ‘ঠগস অফ হিন্দোস্থান

ছবি:ঠগস অফ হিন্দোস্থান পরিচালনা:বিজয় কৃষ্ণ আচার্য অভিনয়:অমিতাভ বচ্চন,আমির খান, ফতিমা সানা শেখ,ক্যাটরিনা কাইফ রেটিং:৫.৫/১০
অমিতাভ-আমির অভিনীত বহু প্রত্যাশিত ছবি ‘ঠগস অফ হিন্দোস্থান’ মুক্তি পেল বৃহস্পতিবার।কিন্ত সেই প্রত্যাশাকে পূরন করতে ব্যার্থ ছবিটি।কিন্ত আপনি যদি কেবল বিনোদনের মনোভাব নিয়ে যান তাহলে ছবিটা কিন্তু খারাপ লাগবে না। ছবিটা ‘ঠগী’দের গল্পের থেকে বলা ভালো এক মেয়ের প্রতিশোধের গল্প-যার নবাব বাবা,দাদা,মা ইংরেজদের ষড়যন্ত্রে প্রাণ হারিয়েছিল। তাকে ইংরেজদের হাত থেকে বাঁচিয়েছিল খুদা বক্স(অমিতাভ বচ্চন)।যে একজন জলদস্যু-যাঁর স্বপ্ন আজাদ ভারতের।নবাব মির্জা সিকেন্দারের মেয়ে এই জফিরা(ফতিমা সানা শেখ)মানুষ হয় খুদা বক্সের কাছে।খুদা বক্স তির ধনুক ও যুদ্ধে তাকে পারদর্শী করে তোলে। এই দুজনের নেতৃত্বে ইংরেজ অতিষ্ট হয়ে ওঠে।এদেরকে ধরতে এদেরই মতো একজন ঠগি দরকার।এই সময় এন্ট্রি ঘটে ফিরিঙ্গি মল্লার(আমির খান)-যে জালিয়াতিতে সেরা। এই জালিয়াত ফিরিঙ্গি খুদা বক্সের দলে ভিড়ে ইংরেজদের খবর আদান প্রদান করতে থাকে।ঘটনা নানা পরম্পরায় একদমই কমার্শিয়াল ধাঁচে এগোয়। ফিলিপ মিডওস টেলর-এর ১৮৩৯ সালে লেখা ক্রাইম উপন্যাস ‘কনফেশনস অফ এ থাগ’ থেকে অনেকটা অনুপ্রাণিত এবং বলা চলে ‘পাইরেটস অফ ক্যারিবিয়ান’-এর অনুকরন।ছবিতে আমির খানের ফিরিঙ্গি অনুপ্রাণিত জ্যাক স্পারো চরিত্রটি।অমিতাভর খুদা বক্স বারবরোসা চরিত্রটি অনুপ্রাণিত।ফতিমার চরিত্রটি কেইরা অনুপ্রাণিত।যশরাজ ফিল্মস এর ব্যানারে বলিউডের সব থেকে বড় বাজেটের ছবি।বানাতে খরচ হয়েছে প্রায় তিনশো কোটি।ক্লাইম্যাক্স শুট হয়েছে মাল্টায়। এখানেই ‘গেম অফ থ্রোনস’-এর শুটিং হয়েছিল।বলিউডের দুর্দান্ত আউটডোর,হলিউডি টেকনিক,দুর্দান্ত ভিজুয়াল এফেক্ট টিম,মারাত্বক সেট ডিরেক্টর সবই ছিল কিন্তু রান্নাটা ঠিক ঠাক হল না।’ধুম৩’-র পরিচালক বিজয় কৃষ্ণ চিত্রনাট্যের বুনট টা ভালো করে বুনতে ব্যার্থ।প্রথমার্ধে ভালো লাগলেও দ্বিতীয়ার্ধ বড্ড বোরিং।ছবিটা আরো ১০ থেকে ১৫ মিনিট এডিট করাই যেতো।কোথাও কোথাও ‘বাহুবলি’র কথা মনে পড়ে যাচ্ছিল।অমিতাভের অ্যাপিয়ারেন্স মারাত্বক লেগেছে।সত্তরের উর্ধ্ব বয়েসে তাঁর অভিনয় নিয়ে কোনো কথা হবে না। ফিরিঙ্গির চরিত্রটা প্রথমে ঋত্বিক রোশনের করার কথা হলেও শেষ পর্যন্ত করেন আমির খান।মি: পারফেকশনিস্ট। চরিত্রের পারফেকশনের কারনে নাক,কান বিধিয়েছেন। কিন্তু শেষ রক্ষা করতে পারলেন না চিত্রনাট্যের জন্য।ফতিমা সানা চরিত্রর জন্য বেশ কসরত করেছেন।তবে ছবির সবচেয়ে দুর্বল অভিনেত্রি ক্যাটরিনা।ন্যাকামি ছেড়ে কবে যে উনি অভিনয়টা শিখবেন কে জানে!তবে প্রভুদেবার কোরিওগ্রাফিতে তিনি দুর্দান্ত নেচেছেন। এই ছবির জন্যই অমিতাভ বচ্চন প্রথম গান লিখলেন।অজয়-অতুল -এর সুরে ছবির গান মন ছুঁতে ব্যার্থ তবে ভালো লাগে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক। ছবির ডিজিটাল রাইট কিনেছে সোনি আর অ্যামাজন ভিডিও।সেখান থেকে উঠেছে ১৫০ কোটি টাকা।প্রথম দিনেই ব্যবসা করেছে ৫০ কোটি টাকা।যেটা এর আগে কোনো ভারতীয় ছবি করতে পারেনি।এখন বক্স অফিস থেকে কতো কালেকশন পাবে সেটা দেখার।
রিভিউ:রামিজ আলি আহমেদ

Please follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *