আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে জ্যোতিকা জ্যোতির নতুন ছবি “মায়া-দ্য লস্ট মাদার”

“মায়া-দ্য লস্ট মাদার” ছবিতে জ্যোতিকা জ্যোতি ও প্রাণ রায়

আনন্দ সংবাদ:২৭ ডিসেম্বর অর্থাৎ আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতির ছবি “মায়া- দ্য লস্ট মাদার”।ছবির কাহিনি বর্তমান সময়ে একজন বীরাঙ্গনা, তার জীবন, সংসার ও অতীত নিয়ে। তার বড় সন্তান একজন যুদ্ধশিশু যে নিঁখোজ, মায়ের খোঁজে আছে সে।

ছোট মেয়ে “মায়া” চরিত্রটি করেছেন জ্যোতিকা জ্যোতি। মা বীরাঙ্গনা হওয়ায় সংসার ভেঙ্গে যায় মায়ার। মায়ের সংসারই এখন মায়া ও তার ২সন্তানের সংসার। বাড়ীতে আশ্রিত আছে আরেক যুদ্ধশিশু যার সাথে মায়ার প্রেম।এদিকে গ্রামের চেয়ারম্যান, ইমাম সকলের নজর মায়ার শরীরে।এসবের মাঝেই চলতে থাকে মায়ার জীবন সংগ্রাম।কৃষিকাজ করে সংসার চালায় মায়া।হালচাষ,পশুপালন থেকে শুরু করে ঘরের কাজ সবই সামলায় মায়া। সমাজের কোন অন্যায়কে প্রশ্রয় না দিয়ে একঘরে হয়ে আত্মসম্মান নিয়ে বাঁচে আর নিজের যুদ্ধ চালিয়ে যায় মায়া। তবুও একদিন সমাজের অন্যায় কষাঘাতে প্রাণ হারায় সন্তানসম্ভবা মায়া, পৃথিবীর আলোর মুখ দেখেনা তার গর্ভের সন্তান।প্রশ্ন তৈরী হয় এই সন্তানের বাবা কে? এভাবেই এগিয়ে যায় গল্প। চরিত্রটিকে এক কথায় বলতে বললেজ্যোতিকা বললেন,” “মায়া মানে বাংলাদেশ।
ভীষন কঠিন ও এক্সপেরিমেন্টাল এই চরিত্র আমার ক্যারিয়ারে নতুন পালক যোগ করবে বলেই আমার বিশ্বাস। এই সিনেমাতে অভিনয় করে গর্বিত কারন ছবির কাহিনি একেতো মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক, আবার কিংবদন্তী শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদের পেইন্টিং এবং প্রখ্যাত কবি কামাল চৌধুরীর কবিতা থেকে সিনেমার গল্প সাজানো হয়েছে। বিষয়টা খুবই এক্সপেরিমেন্টাল।
আর “মায়া” চরিত্রটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ এং আলাদা। সাধারন শ্রেণীর এক অসাধারন নারী মায়া যে পুরো বাংলাদেশকে রিপ্রেজেন্ট করে।”

“মায়া-দ্য লস্ট মাদার” বাংলাদেশ সরকারের অনুদানপ্রাপ্ত একটি চলচ্চিত্র।বাংলাদেশের কিংবদন্তী শিল্পী শাহাবুদ্দীন আহমেদের চিত্রকর্ম “ওমেন” এবং প্রখ্যাত কবি কামাল চৌধুরীর কবিতা “যুদ্ধশিশু” অবলম্বনে চলচ্চিত্রটির কাহিনী, সংলাপ ও পরিচালনা করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা মাসুদ পথিক।অভিনয় করেছেন জ্যোতিকা জ্যোতি, প্রাণ রায়, মুমতাজ সরকার(ভারত), দেবাশীষ কায়সার, কবি কামাল চৌধুরী, কবি আসলাম সানী, ঝুনা চৌধুরী, শাহাদাত হোসেন নিপু, লীনা ফেরদৌসী ও সৈয়দ হাসান ইমাম। বীরাঙ্গনার চরিত্রটি করেছেন প্রবীন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী নার্গিস।শুভমুক্তি ২৭ডিসেম্বর, ২০১৯।

Please follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *